সর্বশেষ খবর:

২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট ও মূল্যায়ন নির্দেশনা নিচে নোটিশ বোর্ডে দেয়া আছে। ধন্যবাদ।  
মেনু নির্বাচন করুন

বিদ্যালয়টির ইতিকথা ও বর্তমান অবস্থা


ঢাকা মহানগরীর ফার্মগেট এলাকায় ৩৬০ একর জমির উপর  প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এশিয়া মহাদেশের একটি বিখ্যাত কৃষির্ফাম যার নাম ছিল ‘ঢাকা ফার্ম’। ১৯৩৬ সনে তেজগাঁও থানার মনিপুরী পাড়ার কৃষিবাগানে ঢাকা ফার্ম প্রাইমারী স্কুল নামে স্কুলের গোড়াপতন হয়েছিল। বর্তমান সংসদ ভবনের মাঝখানে ছিল একটি মনোরম কৃএিম হ্রদ। এলাকার জনসাধারণ তাদের ছেলে মেয়েদের শিক্ষা প্রদানের জন্য একটি উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার প্রয়োজন অনুভব করেছিল। তাই ১৯৬২ সালে এই প্রাইমারী স্কুলের সাথেই নির্মিত হয়েছিল বর্তমানের এই রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়টি। তখন এর নাম ছিল “ঢাকা ফার্ম ইসলামিয়া মডেল জুনিয়র হাই স্কুল”।এর সভাপতি ছিলেন  তৎকালীন এশিয়া মহাদেশের শ্রেষ্ঠ চক্ষু চিকিৎসক জনাব টি আহম্মেদ আর প্রধান শিক্ষক  ছিলেন জনাব হাফিজুর রহমান। ১৯৬৫ সালে স্কুলটিকে হাই স্কুলে উন্নীত করা হয়। নাম রাখা হয় “ ঢাকা ফার্ম ইসলামিয়া মডেল হাইস্কুল” ইহার প্রথম ব্যাজ এস এস সি পরীক্ষা দেয় ১৯৬৭ সালে।ষাটের দশকের শুরুতেই তৎকালীন পাকিস্তান সরকার পূর্ব পাকিস্তানে “সেকেন্ড ক্যাপিটাল” নির্মানের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন। ইহার জন্য সুবিধাজনক স্থান বাছাইকরা হয় অত্র স্কুল ও এর আশেপাশের এলাকা । পাকিস্তান সরকার স্কুলটির জমি জমা সহ অত্র এলাকার ৩৩৫ একর জমি অধিগ্রহন করেন এবং স্কুল কতৃপক্ষকে স্কুলটি অন্যত্র সরিয়ে নিতে চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন। কতৃপক্ষ  স্কুলটি অন্যত্র না সরালে পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডি সরকার স্কুলটি সরাতে বাধ্য করার জন্য ঢাকা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। মামলায় অলৌকিক ভাবে স্কুল কতৃপক্ষ জিতে গেলে পাকিস্তান সরকার বিপাকে পড়ে যায় এবং ঢাকার পি ডব্লিও ডি এর সহযোগিতায় একটি আপোষনামা চুক্তি সম্পাদন করেন।বর্তমান অবস্থানে ১০৬ শতাংশ জায়গা স্কুলটির নামে বরাদ্ধ দেওয়া হয় এবং সেই সময়ে ৭২৪১৪ টাকা স্কুল ভবন নির্মানের জন্য ক্ষতিপুরন হিসাবে দেওয়া হয়। এর মধ্যে ১৯৭১ সালে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নেতৃত্বে স্বাধীনতার ডাক দিলে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। দেশের সর্বকালের শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা বাংলাদেশ স্বাধীন করলে স্কুলের নাম “ ঢাকা ফার্ম ইসলামিয়া মডেল হাইস্কুল” এর পরিবর্তে “ রাজধানী হাইস্কুল” নাম করনে যৌক্তিকতায় কতৃপক্ষকে চাপ দিতে থাকেন। স্বাধীনতার পর থেকে মুক্তিযোদ্বাদের চেতনায় অএ স্কুলটির নাম করন “ রাজধানী হাইস্কুল” হয়।বিদ্যালয়ের অতীত ও বর্তমান অত্যন্ত গৌরবের। এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে বহু শিক্ষার্থী শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের, মহাবিদ্যালয়ের ও বিদ্যালয়ের স্বনামধন্য শিক্ষক হয়েছেন। সচিব, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার,ব্যারিষ্টার, সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারী হয়েছেন অগনিত। রাজনীতিবিদ, চিত্রনায়ক, খেলোয়াড়, সামরিক অফিসারসহ বহু কর্মক্ষেত্রে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন অএ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সুদক্ষ ও শিক্ষিত পরিচালনা কমিটি কতৃক বারবার বিদ্যালয়টি পরিচালিত হয়েছে।প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী দের জন্য রয়েছে রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন (RUBBA) । বর্তমানে রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়টি সফল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খাঁন এম পি এর পৃষ্টপোষকতায়, ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ২৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর  ও অত্র প্রতিষ্ঠানের সম্মানিত সভাপতি জনাব ফরিদুর রহমান খাঁন ইরানের পরিচালনায় সুদক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রধান শিক্ষক জনাব মো: মোজাম্মেল হক মিয়ার দূরদৃষ্টিভঙ্গী সম্পন্ন নেতৃত্বে, যোগ্য সদস্য ও শিক্ষকমন্ডলীদের সহযোগিতায় অত্র প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষন বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। অবকাঠামো ও সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি পেয়েছে। লেখাপড়ার মানোন্নয়ন ও ফলাফল সন্তোষজনক হয়েছে। এতে রয়েছে উন্নত মানের শ্রেণী কক্ষ, প্রধান শিক্ষকের কক্ষ, শিক্ষক মিলনায়তন, অফিস কক্ষ, কম্পিউটার কক্ষ ও দারোয়ান সেট। আরও রয়েছে আধুনিক শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব, বিজ্ঞানাগার, লাইবেরী, অডিটোরিয়াম, মসজিদ ও ওজুখানা।বিদ্যালয়ের সম্মুখ ভাগে দেওয়ালে রয়েছে আধুনিক মুরাল খচিত  জাতীয় কিছু চিত্রাবলী যার দৃশ্যাবলী  নয়নাভিরাম । দুটি গেইট , কর্মচারীদের বাসস্থান, প্রধান শিক্ষকের বাসস্থান সহ ১৬ টি আধুনিক টয়লেট ও ১০ টি বেসিন শোভা পাচ্ছে। এতে রয়েছে খেলাধুলার জন্য চমৎকার খোলামেলা মাঠ । ডিজিটাল হাজিরা, মেসেজিং সিস্টেম, ফটোষ্ট্যাট মেশিন, ইন্টারনেট, এসএমএস সিস্টেম, ওয়েবসাইট  বিদ্যমান সহ সকল কাজ পরিচালিত হয় ডিজিটাল পদ্ধতিতে । বিদ্যালয়টি সম্মুখ ভাগে সুবিশাল রাজপথ মানিকমিয়া এভিনিউ ও জাতীয় সংসদ ভবন, পিছনে রয়েছে ইন্দিরারোড ও অভিজাত এলাকা, পূর্বে টি এন্ড টি ভবন এবং পশ্চিমে ন্যাম ভবন।রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়টি ঢাকা মহানগরীর শেরে বাংলা নগর থানার জাতীয় সংসদ এলাকায় আবস্থিত ঐতিহ্যবাহী ও স্বনামধন্য ও মান সম্পন্ন বিদ্যালয় যা সারা বাংলাদেশে অত্যন্ত সুপরিচিত। মানণীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় স্পিকার, স্বরাস্ট্রমন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রী, শিক্ষা সচিব, মহাপরিচালক, উপ পরিচালক, সহকারী পরিচালক, জেলা শিক্ষা অফিসার, থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সহ সকল শিক্ষা কর্মকর্তা কর্মচারীদের অএ বিদ্যালয়ের প্রতি সুনজর রয়েছে বিদ্যালয়টি সরকারী করনের জন্য।

 

ঐতিহ্যবাহী রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়

মহান জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিন পাশে মানিক মিয়া এভিনিউ সংলগ্ন। শেরে বাংলা নগর, ঢাকা  -১২০৭।

Top